সৈয়দপুরে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে চলছে হোটেল ব্যবসা !

মমিন আজাদ: করোনা মহামারির মধ্যেও নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে অধিকাংশ খাবার হোটেলে মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধি। এতে করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি । যেসব হোটেলে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছেনা সেসব হোটেলের বিরদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছে সচেনমহল।

উপজেলা শহরের বেশ কিছু হোটেলে সজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যারা খাবার পরিবেশন করছেন তাদের কারো মুখেই নেই মাস্ক, হাতে নেই গ্লাবস্। এমন কি হোটেল ব্যাবস্থাপক কিংবা মালিকেও মাস্ক পরিধান করতে দেখা যায়নি। হাতে গ্লাবস পরিধান ছাড়াই গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছেন এবং দিচ্ছেন। যারা খাবার খাচ্ছেন তাদেরও স্বাস্থ্যবিধি মানার নেই কোন বালাই। সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে একই টেবিলে গাদা গাদি করে বসে খাবার খাচ্ছেন।

এ ছাড়া এসব হোটেলে খাবার তৈরি ও পরিবেশন হচ্ছে অপরিচ্ছন্ন ও নোংরা পরিবেশে। গ্রামের হোটেল গুলোর অবস্থা আর ও ভয়াবহ। হোটেল মালিকরা অনেকেই জানেন না করোনাকালিন স্বাস্থ্যবিধি। জানলেও তাদের মধ্যে না মানার প্রবণতাই বেশি। হোটেল মালিকদের সাথে কথা বললে, তাদের অনেকেই করোনাকে তাচ্ছিল করে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কি হবে। যা হবার তাই হবে। তবে অধিকাংশ সচেতন মহল এখন হোটেল বিমুখ।

যারা খুব প্রয়োজনে হোটেলে যাচ্ছেন , পরিবেশ বিবেচনায় হোটেলে কিছু না খেয়ে বের হয়ে আসতে বাধ্য হচ্ছেন । সচেতন এক নাগরিক বাংলা রিপোর্ট’কে বলেন, খুব জররি প্রয়োজনে বাধ্য হয়ে দুপুরের খাবার খেতে এসে ,হোটেলের ভিতরের স্বাস্থ্যগত পরিবেশ দেখে খাবার রুচি হয়নি । শহরের সুপরিচিত আরও তিনটি হোটেলে গিয়ে একই পরিবেশ দেখে, না খেয়েই বাড়ী ফিরে যান । ফলে ওই দিন শুকনো খাবার খেয়ে দিন কাটিয়েছি। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মো. নাসিম আহমেদ বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মানতে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় অনেক প্রতিষ্ঠানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে জরিমানা করা হয়েছে। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচলানা অব্যাহত থাকবে। ২৭ জুলাই ২০২০.