চলছে ‘বাংলা ব্লকেড’

ঢাকা  সোমবার, ০৮ জুলাই ২০২৪, ২৪ আষাঢ় ১৪৩১

বাংলা রিপোর্ট : ঢাকাসহ পুরো দেশজুড়ে পালিত হয়েছে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীদের ‘বাংলা ব্লকেড’। এক দফা দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় জড়ো হয়ে স্লোগান, গান আর কবিতা আবৃত্তি করে শান্তিপূর্ণ এ কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

আজ ৮ জুলাই সোমবার বিকাল পর্যন্ত যেসব জায়গায় ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি চলছে তা হলো-

শাহবাগ মোড়, চানখারপুল, ইন্টারকন্টিনেন্টাল মোড়, পল্টন মোড়, কারওয়ান বাজার, বাংলা মোটর, ফার্মগেটে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

গুলিস্তানের জিরো পয়েন্টসহ সচিবালয় এলাকা দখলে নিয়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, কবি নজরুল সরকারি কলেজ ও সরকরি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের শিক্ষার্থীরা।আরও পড়ুনকোটাবিরোধী আন্দোলন / বাংলামোটর-কারওয়ান বাজার পেরিয়ে ফার্মগেট অবরোধ

ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আগারগাঁও মোড় এবং মিরপুর-১২ অবরোধ করেছেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশালের (বিইউপি) শিক্ষার্থীরা।

এদিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাজশাহী রেলপথ অবরোধ করেছেন।

এ ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মডার্ন মোড়, রংপুর-ঢাকা মহাসড়ক, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক, সরকারি হাজী মহসিন মুহাম্মদ কলেজ, সরকারি সিটি কলেজের শিক্ষার্থীরা ষোলশহর, চট্টগ্রাম রেলপথ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়ক, ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা কুষ্টিয়া-খুলনা সড়ক এবং রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-পাবনা সড়কে ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করেছেন।

এছাড়াও শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, রুয়েট, আনন্দমোহন, নোবিপ্রবি, আশেক মাহমুদ কলেজসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় কোটা আন্দোলন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

এ সময় আন্দোলনকারীরা ‘মেধা না কোটা?, মেধা মেধা’, ‘এই বাংলায় হবে না, বৈষম্যের ঠিকানা’, ‘সংবিধানের মূল কথা, সুযোগের সমতা, ‘৭১ এর বাংলায়, বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘সারা বাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে’, ‘জেগেছে রে জেগেছে, ছাত্র সমাজ জেগেছে’, ‘সংগ্রাম না রাজপথ, রাজপথ রাজপথ’, ‘আমার সোনার বাংলায়, বৈষম্যের ঠাঁই নাই’, ‘এসো ভাই এসো বোন, গড়ে তুলি আন্দোলন’, ‘আঠারোর হাতিয়ার, গর্জে ওঠো আরেকবার’, ‘মুক্তিযুদ্ধের হাতিয়ার, গর্জে ওঠো আরেকবার’সহ বিভিন্ন স্লোগান দেন।

বৈষম্য বিরোধী ছাত্র আন্দোলন ব্যানারে অবরোধ করা শিক্ষার্থীরা বলেন, এই মুহূর্তে আর অন্য কোনো দাবি নেই। এখন আমাদের এক দফা দাবি। সেটি হচ্ছে কোটা বাতিল করতে হবে। কোটার মাধ্যমে বিশেষ একটি শ্রেণিকে অতিরিক্ত সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি আমরা দেখেছি বিপিএসসির অধীনে নেওয়া পরীক্ষারও প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটেছে। এমনটি যদি সত্যি হয়ে থাকে তবে ছাত্রসমাজের আর আশার কোনো জায়গা নেই। সামগ্রিকভাবে একটি সিস্টেম দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়লে টেনে তোলা কঠিন। একদিকে প্রশ্ন ফাঁস অন্যদিকে কোটা। তাহলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কোনো জায়গা নেই। সেজন্য এই মুহূর্তে আমাদের এক দফা এক দাবি-কোটা বাতিল করতে হবে।

এদিকে সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা বাতিল করে ২০১৮ সালে সরকারের জারি করা পরিপত্র পুনর্বহালসহ চার দফা দাবি আদায়ে সোমবার টানা দ্বিতীয় দিনের মতো ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করছেন আন্দোলনকারীরা। ঢাকা  সোমবার, ০৮ জুলাই ২০২৪, ২৪ আষাঢ় ১৪৩১.